২০২১ সাল নাগাদ পোশাক রফতানি থেকে আয়ের লক্ষ্য ধরা হয়েছে ৫০ বিলিয়ন ডলার। দেশের পোশাক শিল্পের জন্য এটা বড় উল্লম্ফন। কিন্তু বিদ্যমান পরিস্থিতিতে রফতানি আয়ের এ লক্ষ্য অর্জন সম্ভব নয় বলে মনে করছে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়। একই মতামত এ খাতের ব্যবসায়ীদেরও। বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সাম্প্রতিক প্রক্ষেপণ অনুযায়ী, ২০২১ সাল নাগাদ পোশাক রফতানি থেকে আয় হতে পারে ৩৮ বিলিয়ন ডলার।

Read more ...

২০১৮ সালে চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে প্রায় ২৯ লাখ ৪ হাজার টিইইউ কনটেইনার পরিবহন হয়েছে, যা বন্দরের ইতিহাসে রেকর্ড। ২০১৭ সালের চেয়ে বিদায়ী বছরে কনটেইনার পরিবহন বেড়েছে ৮ দশমিক ৮৮ শতাংশ। ২০১৭ সালে চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে কনটেইনার পরিবহন হয়েছিল ২৬ লাখ ৬৭ হাজার ২০২ টিইইউ।

Read more ...

• নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ বলছে বাংলাদেশে বাজারে কোনো ধরণের এনার্জি ড্রিংক থাকবে না। এর কারণ হিসেবে তারা বলছেন এসব ড্রিংকসে ক্যাফেইনের মাত্রা অনেক বেশি। যেটা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এবং সেটা খাওয়া থেকে নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না।

• বাংলাদেশের নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের অতিরিক্ত সচিব মাহাবুব কবির বলছিলেন, ‘এটা বাজারজাত, উৎপাদন করা যাবে না। প্রচার এবং বিজ্ঞাপন দেয়া যাবে না, এই বিষয়ে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত হয়েছে। খুব শিগগিরই এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেয় হবে।’

Read more ...

তৈরি পোশাক খাতে ব্যাংকের অর্থায়নে সবচেয়ে বড় বাধা বিলম্বে রফতানি। অনেক ক্ষেত্রেই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পণ্য পাঠানো সম্ভব হয় না। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৬৬ শতাংশ ব্যাংকার এমন ধারণা পোষণ করেন। রফতানিকারকরা সঠিক কাগজপত্র উপস্থাপন না করার কারণে অর্থায়নে জটিলতা তৈরি হয় বলে মনে করেন ৫৩ শতাংশ ব্যাংকার। রোববার রাজধানীর মিরপুরে বিআইবিএম অডিটোরিয়ামে ব্যাংকের মাধ্যমে 'তৈরি পোশাকে বাণিজ্য সহজীকরণ : ঝুঁকি ও তা মোকাবেলার কৌশল' নামে এক কর্মশালায় প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়। মূল প্রবন্ধে বিআইবিএমের পরিচালক (প্রশিক্ষণ) ড. শাহ মো. আহসান হাবীব বলেন, ব্যাংকে বৈদেশিক বাণিজ্য সেবার মান আগের চেয়ে ভালো। তবে পুরোপুরি কমপ্লায়েন্স মানা হচ্ছে কি-না, তা বিশ্বব্যাপী উদ্বেগের বিষয়। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে তৈরি পোশাক খাতের ওপর। স্বাগত বক্তব্যে বিআইবিএমের মহাপরিচালক ড. তৌফিক আহমদ চৌধুরী ব্যাংকিং কার্যক্রমে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সেবায় কমপ্লায়েন্স পুরোপুরি পরিপালনের ওপর গুরুত্ব দেন।

Read more ...