দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগ আকর্ষণ  করার জন্য বিদ্যমান কর নীতিমালাকে যুগোপযোগী ও বাস্তবভিত্তিক করার পরামর্শ দিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মশিউর রহমান।

 

শনিবার রাজধানীতে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আয়োজিত “জ্বালানি খাতের মেগা প্রকল্পে অর্থায়নে প্রতিবন্ধকতা”- শীর্ষক সেমিনারের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা  বলেন।

মশিউর রহমান বলেন, বিদ্যুৎ খাতের বৃহৎ প্রকল্পগুলোতে অর্থায়ন নিশ্চিত করতে অবশ্যই বিনিয়োগকারীদের আস্থা অর্জন করতে হবে। বড় বড় প্রকল্পের অর্থায়ন নিশ্চিতকরণের জন্য সরকার “দীর্ঘ মেয়াদী বন্ড ব্যবস্থা চালু” করতে পারে এবং জনগণকে  এ ধরনের বন্ডে বিনিয়োগ করার বিষয়ে উৎসাহিত করতে সরকারের পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন।

তিনি বলেন, দীর্ঘমেয়াদী বিনিয়োগ আকর্ষণ করার জন্য বিদ্যমান কর নীতিমালাকে যুগোপোযোগী ও বাস্তবভিত্তিক হতে হবে। ৩৫০ থেকে ৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন ও পরিচালনার সফলতার জন্য ব্যবস্থাপনার দক্ষতা বৃদ্ধির করতে হবে।

বর্তমানে দেশে ৬ থেকে ৮ শতাংশ মূল্যস্ফীতি আমাদের দেশের অর্থনীতির জন্য খুব বেশি উদ্বেগের বিষয় নয় বলেও মন্তব্য করেন মশিউর।

সেমিনারে স্বাগত বক্তব্যে ডিসিসিআই সভাপতি হোসেন খালেদ বলেন, আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য বিদ্যুৎ ও জ্বালানি একটি অত্যাবশকীয় বিষয়। সময়মত অর্থায়ন নিশ্চিত না করার কারণে অনেক সময় স্থানীয় ও জয়েন্ট ভেঞ্চার উদ্যোগ ব্যাহত হচ্ছে। বিদ্যুৎ খাতে দীর্ঘমেয়াদী অর্থায়ন নিশ্চিতকরণের জন্য “ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন অ্যান্ড ফিন্যান্সিং ফেসিলিটির  (আইপিএফএফ)” মত বাংলাদেশ ব্যাংকের আওতায় “পাওয়ার ফিন্যান্সিং ফান্ডিং ফেসিলিটি” প্রকল্প গ্রহণ করা যেতে পারে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব ড. এম ফউজুল কবির খান।

সেমিনারে আরো উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা বিভাগের সচিব তারিক-উল ইসলাম, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ হোসেন, ডিসিসিআই সহ-সভাপতি হুমায়ুন রশিদ, প্রাক্তন সভাপতি রাশেদ মাকসুদ খান ও পরিচালক সেলিম আকতার খান প্রমুখ।

 

বাংলাবিজনিউজ/আনোয়ার