বিশ্বব্যাংকের সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনায় আজ থেকে মিয়ানমারের রাজধানী নেপিডোতে শুরু হচ্ছে আইডিএ-১৮ সহায়তা প্যাকেজ সভা।

 

আগামী তিন বছরের জন্য তহবিল সংগ্রহ এবং সংস্থার নীতিকাঠামো পর্যালোচনার ওপর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের (আইডিএ) সদস্যভুক্ত দেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে এ সভা হবে। চার দিনব্যাপী আইডএি-১৮ সহায়তা প্যাকেজ সভা শেষ হবে আগামী শুক্রবার।

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ এ সভায় যোগ দিচ্ছে। এতে ভবিষ্যত উন্নয়ন কার্যক্রমে বিশ্বব্যাংকের অংশগ্রহণ বাড়ানোর প্রস্তাব দেবে বাংলাদেশ।

বৈঠক সম্পর্কে বিশ্বব্যাংক ঢাকা কার্যালয়ের মূখপাত্র মেহরীন এ মাহবুব বলেন, আইডিএ-১৮ সহায়তা প্যাকেজ সভায় আগামী তিন বছর বিশ্বব্যাংক যেসব ঋণ সহায়তা দেবে, তার তহবিল সংগ্রহের উপায় এবং নীতিকাঠামোর ওপর পর্যালোচনা হবে। এতে ঋণ সহায়তা প্রদানকারী দাতা দেশের (আইডিএ) পাশাপাশি ঋণ গ্রহণকারী দেশের প্রতিনিধিরাও উপস্থিত থাকবেন।

প্রতি তিন বছর পর এ সভা হয। এতে ঋণ সহায়তা প্রদানকারী আইডিএভুক্ত সদস্য দেশ তহবিল সরবরাহের বিষয়টি চূড়ান্ত করেন। আইডিএ দাতা সদস্যের সংখ্যা ৫০। এদের দেওয়া তহবিলে বিভিন্ন দেশের উন্নয়ন কার্যক্রমে ঋণ সহায়তা প্রদান করা হয়।

অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব মোহাম্মদ মেজবাহউদ্দিনের নেতৃত্বে বাংলাদেশের দুই সদস্যের প্রতিনিধিদল সভায় অংশ নেবে।

ইআরডি সূত্র জানায়, সভায় যোগাযোগ অবকাঠামো, জ্বালানি ও আঞ্চলিক কানেকটিভিটির ক্ষেত্রে অর্থনৈতিক উন্নয়ন সহায়তা বাড়ানোর বিষয়টি বাংলাদেশ তুলে ধরবে, যাতে বাংলাদেশের ভবিষ্যত উন্নয়ন কার্যক্রমে বিশ্বব্যাংকের অংশগ্রহণ বাড়ে। গত তিন বছর বিশ্বব্যাংক যে পরিমাণ ঋণ সহায়তা দিয়েছে, আগামী তিন বছর সেটা যেন আরো বৃদ্ধি পায়, এ ধরনের প্রস্তাব উপস্থাপন করা হবে।

উল্লেখ্য, আইডিএ-১৭ সহায়তা প্যকেজ থেকে বাংলাদেশ তিন বছরে প্রায় ৪ দশমিক ৩৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ঋণ সহায়তা পেয়েছে। ২০১৩ সালে অনুষ্ঠিত আইডিএ-১৭ সহায়তা প্যাকেজ সভায় ৫২ দশমিক ১ বিলিয়ন ডলারের তহবিল সংগ্রহের বিষয়টি চূড়ান্ত হয়েছিল।

 

বাংলাবিজনিউজ/আনোয়ার