পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা ঠেকাতে স্বল্প পরিসরে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু করেছে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। প্রতি কেজি পেঁয়াজ ৪৫ টাকায় বিক্রি করছে সরকারি সংস্থাটি। টিসিবির কয়েকটি বিক্রয়কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি ক্রেতার কাছে দুই কেজি করে পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে। খামারবাড়ি টিসিবির বিক্রয়কেন্দ্রে দেখা গেছে, টিসিবির ট্রাকের মধ্যে একটি করে ব্যাগে দুই কেজি করে পেঁয়াজ রাখা হয়েছে। ফলে ক্রেতারাও দ্রুত পণ্যটি নিয়ে যেতে পারছে। তবে একসঙ্গে বাড়তি ভিড় লক্ষ করা না গেলেও অনেক ক্রেতাকে এই পেঁয়াজ কিনতে দেখা গেছে। পেঁয়াজ কিনতে আসা এক বেসরকারি চাকরিজীবী মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘অস্থিরতার এই সময়ে ৪৫ টাকা কেজি দরের পেঁয়াজ খানিকটা স্বস্তি দিচ্ছে।’

Read more ...

তৈরি পোশাক খাতে ব্যাংকের অর্থায়নে সবচেয়ে বড় বাধা বিলম্বে রফতানি। অনেক ক্ষেত্রেই নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পণ্য পাঠানো সম্ভব হয় না। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৬৬ শতাংশ ব্যাংকার এমন ধারণা পোষণ করেন। রফতানিকারকরা সঠিক কাগজপত্র উপস্থাপন না করার কারণে অর্থায়নে জটিলতা তৈরি হয় বলে মনে করেন ৫৩ শতাংশ ব্যাংকার। রোববার রাজধানীর মিরপুরে বিআইবিএম অডিটোরিয়ামে ব্যাংকের মাধ্যমে 'তৈরি পোশাকে বাণিজ্য সহজীকরণ : ঝুঁকি ও তা মোকাবেলার কৌশল' নামে এক কর্মশালায় প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়। মূল প্রবন্ধে বিআইবিএমের পরিচালক (প্রশিক্ষণ) ড. শাহ মো. আহসান হাবীব বলেন, ব্যাংকে বৈদেশিক বাণিজ্য সেবার মান আগের চেয়ে ভালো। তবে পুরোপুরি কমপ্লায়েন্স মানা হচ্ছে কি-না, তা বিশ্বব্যাপী উদ্বেগের বিষয়। এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে তৈরি পোশাক খাতের ওপর। স্বাগত বক্তব্যে বিআইবিএমের মহাপরিচালক ড. তৌফিক আহমদ চৌধুরী ব্যাংকিং কার্যক্রমে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সেবায় কমপ্লায়েন্স পুরোপুরি পরিপালনের ওপর গুরুত্ব দেন।

Read more ...

রমজানের শেষ দিকে রাজধানীর খুচরা বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ছিল ২৫ থেকে ৩০ টাকা। ঈদের পরেও বহাল ছিল এ দাম। এরপর ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। দুই মাসের ব্যবধানে দাম বেড়ে হয় দ্বিগুণ। খুচরা বাজারে গতকাল ৬০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হয় প্রতি কেজি দেশী পেঁয়াজ। বিক্রেতাদের আশঙ্কা আসন্ন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে পেঁয়াজের দাম আরো বেড়ে যেতে পারে। এমন আশঙ্কার মধ্যেই বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ গতকাল সাংবাদিকদের বলেন, ঈদের পর দাম কমে যাবে। ব্যবসায়ীদের কারসাজির কারণে পেঁয়াজের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধিতে দেশের মানুষ যখন ত্যক্ত-বিরক্ত ঠিক তখনই গণমাধ্যমে দেয়া মন্ত্রীর এ বক্তব্যকে তামাশা বা মশকরা হিসেবে দেখছেন সংক্ষুব্ধরা।

Read more ...

খামারিরা ডিম উৎপাদন করে যা মুনাফা করছে তার চেয়ে বেশি লাভ পকেটে তুলছে খুচরা বিক্রেতারা। অস্থির হয়ে ওঠা ডিমের বাজারে প্রতি ডিমে দুই টাকা পর্যন্ত লাভ করছে খুচরা বিক্রেতারা, যেখানে খামারিদের লাভ হচ্ছে সর্বোচ্চ ৫০ পয়সা থেকে এক টাকা। খরচ পোষাতে না পেরে প্রান্তিক অনেক খামারি ডিম উৎপাদন থেকে সরে এসেছে। সংশ্লিষ্ট অনেকের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বছর বছর খাদ্যের দাম বাড়ছে। প্রতিযোগিতার বাজারে বড় খামারিরা পোষাতে পারলেও ছোট খামারিদের লোকসান দিতে হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের শুরুর তুলনায় মাঝামাঝিতে এসে ডিমের উৎপাদন কমে গেছে অন্তত ২৫-৩০ লাখ।

Read more ...