বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধারে আবারো ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে বসছে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক, সুইফট ও বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধি দল।

 

আজ মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বুধবারও বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

এতে অংশ নিতে ইতোমধ্যে সোমবার রাতে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহা. রাজি হাসানের নেতৃত্বে চার সদস্যের প্রতিনিধি দল ঢাকা ত্যাগ করেছেন।

প্রতিনিধি দলে অন্যদের মধ্যে আছেন- কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ইনফরমেশন সিস্টেমস ডেভেলপমেন্ট বিভাগের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) দেবদুলাল রায়, অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড বাজেটিং বিভাগের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) মো. জাকের হোসেন ও বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইইউ) যুগ্ম পরিচালক মোহাম্মদ আবদুর রব।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহা বলেন, রিজার্ভের অর্থ চুরির ক্ষেত্রে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক ও সুইফটের দায় আছে। সুইজারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে বিষয়টি তুলে ধরে অর্থ উদ্ধারে তাদের সহায়তা চাওয়া হয়েছে। এবারের বৈঠকেও বিষয়টি গুরুত্ব পাবে। বিশেষ করে আগের বৈঠকের সিদ্ধান্তগুলো বাস্তবায়ন কোন পর্যায় আছে, তা আলোচনা করা হবে।

এর আগে ১০ মে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় সুইজারল্যান্ডের ব্যাসেল শহরে। ওই বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, নিউইয়র্ক ফেডের প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম ডুডলে ও সুইফটের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে নিউইয়র্ক ফেডের ওয়েবসাইটে যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়।

তাতে বলা হয়, চুরি যাওয়া রিজার্ভের অর্থ উদ্ধারে বাংলাদেশ ব্যাংক, নিউইয়র্ক ফেড ও সুইফট একযোগে কাজ করবে। এছাড়া বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাইবার ও অন্যান্য কাঠামোগত নিরাপত্তা ত্রুটি নিয়ে আলোচনা হয়। পরস্পরের মধ্যে তথ্যবিনিময়, চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধার ও দোষীদের বিচারের আওতায় আনতে এ তিন পক্ষ একযোগে কাজ করতে সম্মত হয়।

ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে রক্ষিত বাংলাদেশের ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি যায়। এ অর্থ ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশনের (আরসিবিসি) পাঁচটি অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে বেরিয়ে যায়।

 

বাংলাবিজনিউজ/আনোয়ার