অবশেষে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে বিশেষায়িত পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক। আজ বুধবার দুপুরে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে ব্যাংকের কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

৪৮৫টি শাখা নিয়ে যাত্রা শুরুর কথা থাকলেও প্রাথমিকভাবে ১০০ উপজেলায় নিজস্ব ভবনে শাখা চালু হচ্ছে ব্যাংকটির। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, প্রতি উপজেলায় পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের শাখা খোলার কার্যক্রমের প্রথম ধাপ হিসেবে প্রথম ধাপে ১০০টি শাখা খোলা হচ্ছে।

পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকটি মূলত ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের স্থায়ী রূপ। প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হচ্ছে চলতি মাসের ৩০ তারিখ। মেয়াদ শেষ হওয়ার ৮ দিন আগেই আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে ব্যাংকটি।

২০১৩ সালের ৯ অক্টোবর ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের অনুষ্ঠানে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী। ২০১৪ সালের ৮ জুলাই জাতীয় সংসদে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠার আইন পাস হয়। ২০১৪ সালের ৩১ আগস্ট প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে ‘একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প’কে স্থায়ী রূপদান করে বিশেষায়িত ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক’ প্রতিষ্ঠা করা হয়।

এর আগে ১৯ জুন পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান মিহির কান্তি মজুমদার স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি চিঠি দেশের সব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর পাঠানো হয়। চিঠিতে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী পল্লী অঞ্চলের সব বাড়িকে খামারে রূপান্তরের এক মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। সেই অনুযায়ী প্রকল্প বাস্তবায়ন প্রায় শেষ পর্যায়ে।

এতে আরো বলা হয়, প্রকল্পের অধীনে দেশের সব ইউনিয়নের প্রতি ওয়ার্ডে একটি করে সমিতি গঠিত হয়েছে ও এর সদস্য সংখ্যা প্রায় ২৪ লাখ। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন, ২০১৪ পাস করে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

চিঠিতে আরো বলা হয়, প্রতি উপজেলায় পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের শাখা খোলার প্রথম ধাপ হিসেবে ১০০ উপজেলার শাখা ২২ জুন গণভবনে প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন। প্রকল্পের মেয়াদ শেষের পর অবশিষ্ট উপজেলায় শাখা চালুর মাধ্যমে এ ব্যাংকের কার্যক্রম শুরু হবে।

এ ছাড়া প্রত্যেক উপজেলা মিলনায়তন, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের শাখা বা একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের শাখায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপভোগ করতে চিঠিতে অনুরোধ জানানো হয়। সূত্র জানায়, দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে সঞ্চয়ে উদ্বুদ্ধ করা, নারীর ক্ষমতায়ন ও অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বী করতে সরকার এটিকে বিশেষাতি ব্যাংক ঘোষণা করে।

প্রায় ৩ হাজার ১৬৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪৮৫ উপজেলায় ৪৫০৩ ইউনিয়নের ৪০ হাজার ৫২৭ গ্রামে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। ১০০ উপজেলায় ভবন নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। এসব উপজেলায় শাখা চালু হচ্ছে। আরো ২০০ উপজেলায় ভবন নির্মাণ কাজ এ বছর শেষ হবে।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ১ হাজার কোটি টাকা অনুমোদিত ও ২০০ কোটি টাকা পরিশোধিত মূলধন নিয়ে প্রাথমিকভাবে ক্ষুদ্রঋণ মডেলের আদলে বিশেষায়িত পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক যাত্রা শুরু করবে। এর মধ্যে ৯৮ কোটি টাকা প্রকল্পের আওতায় গঠিত সমিতির শেয়ারহোল্ডারদের।

তবে ব্যাংক সময়ে সময়ে সরকারের অনুমোদনক্রমে সরকারি গেজেট ও প্রজ্ঞাপন দ্বারা অনুমোদিত মূলধন অপরিবর্তিত রেখে পরিশোধিত মূলধন বাড়াতে পারবে। পরিশোধিত মূলধনের ২০০ কোটি টাকার মধ্যে ৫১ শতাংশ হবে সরকারের আর বাকি ৪৯ শতাংশ থাকবে প্রকল্পের আওতায় গঠিত ঋণ গ্রহীতা শেয়ার হোল্ডারদের।

অনুমোদিত মূলধন ১০০ টাকা মূল্যমানের ১০ কোটি শেয়ারে বিভক্ত থাকবে। ব্যাংক পরিচালনায় ১৫ সদস্যের বোর্ড থাকবে। এর মধ্যে আটজন সরকার কর্তৃক মনোনীত হবেন। বাকি সাতজন সদস্য নির্বাচিত হবেন প্রশাসনিক বিধি দ্বারা সদস্য শেয়ার হোল্ডারদের প্রতিনিধি হিসেবে। সরকার কর্তৃক নিযুক্ত পরিচালকদের থেকে একজন চেয়ারম্যান হবেন। এ ব্যাংকের পরিচালকদের মেয়াদ হবে সর্বোচ্চ তিন বছর। ব্যবস্থাপনা পরিচালক বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন ক্রমে বোর্ড কর্তৃক নিযুক্ত হবেন।

 

বাংলাবিজনিউজ/আনোয়ার