দেশের ৫৫টি ব্যাংক বড় ঋণগ্রহীতাকে ঋণ দিয়েছে সাড়ে ৩ লাখ কোটি টাকা, যা মোট বিতরণকৃত ঋণের প্রায় ৩৬ শতাংশ। আর ব্যাংকের মোট মূলধনের ২৩৩ শতাংশ। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ব্যাংকাররা জানিয়েছেন, বড় অঙ্কের ঋণ দিয়ে অনেক ব্যাংকই এখন বেকায়দায় আছে। বেশির ভাগ বড় ঋণগ্রহীতা ঋণ নিয়ে তা পরিশোধ করতে পারছেন না। এতে ব্যাংকিং খাতে বেড়ে যাচ্ছে খেলাপি ঋণের পরিমাণ। আর এর সরাসরি প্রভাব পড়ছে ব্যাংকের মূলধনের ওপর। অনেক ব্যাংকই তাদের ঝুঁকিভিত্তিক সম্পদের বিপরীতে মূলধন সংরক্ষণ করতে পারছে না। ভারী হচ্ছে লোকসানের পাল্লা।

Read more ...

ব্যাংকিং খাতে শীর্ষ ২৫ ঋণখেলাপির পকেটে আটকে পড়েছে প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকা। দীর্ঘ দিন যাবৎ পরিশোধ না করায় এখন তা কুঋণ বা মন্দঋণে পরিণত হয়েছে। শীর্ষ ২৫ খেলাপির কাছ থেকে ঋণ আদায়ের কৌশল নির্ধারণে অর্থ মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সমন্বয়ে কমিটি গঠনের পরামর্শ দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। একই সাথে কমিটি গঠনের ৪৫ দিনের মধ্যে সংসদীয় কমিটির কাছে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

Read more ...

মন্দ ঋণের কবলে পড়ে গেছে দেশের ব্যাংকিং খাত। সাধারণ মানুষের আমানতের অর্থ ঋণ হিসেবে বিতরণ করা হচ্ছে। কিন্তু ওই ঋণ কাক্সিক্ষত হারে আদায় হচ্ছে না। ফলে বেড়ে যাচ্ছে খেলাপি ঋণ। আবার খেলাপি ঋণ আদায়ের হারও অনেক কম। বেশির ভাগ খেলাপি ঋণ আদায় অযোগ্য বা কুঋণে পরিণত হচ্ছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ পরিসংখ্যান মতে, গত ডিসেম্বর প্রান্তিকে আদায় অযোগ্য ঋণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে মোট খেলাপি ঋণের ৮৭ শতাংশ। এর মধ্যে সরকারি মালিকানাধীন ব্যাংকগুলোরই ঋণ প্রায় ৯১ শতাংশ। আদায় অযোগ্য ঋণ বেড়ে যাওয়ায় ব্যাংকগুলোর সম্পদের গুণগত মান কমে যাচ্ছে। কমে যাচ্ছে ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগ সক্ষমতা।

Read more ...

দুর্নীতিগ্রস্ত রাষ্ট্রীয় ব্যাংকগুলোকে মূলধন সহায়তা বাবদ দুই হাজার কোটি টাকা দিতে চাচ্ছে না অর্থ বিভাগ। অর্থ বিভাগ থেকে বলা হয়েছে, প্রতি বছর মূলধন ঘাটতি মেটানোর জন্য এসব ব্যাংককে হাজার হাজার কোটি টাকা দেয়া হচ্ছে। কিন্তু তাতে ব্যাংকগুলোর আর্থিক অবস্থার কোনো পরিবর্তন হচ্ছে না। তাই প্রতি বছর ব্যাংকগুলোর চাহিদামাফিক অর্থ দেয়ার কোনো যৌক্তিকতা নেই। কারণ এই অর্থ জনগণের, এ ক্ষেত্রে জবাবদিহিতার একটি ব্যাপার রয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। উল্লেখ্য, সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী রাষ্ট্রীয় ব্যাংকগুলোতে খেলাপি ঋণ রয়েছে সাড়ে ৩৭ হাজার কোটি টাকা।

Read more ...